Templates by BIGtheme NET
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

এক মিনিটের ঝলকে শেষ অবলাক দেয়াল

স্পোর্টস ডেস্ক:
ইয়ান অবলাক। যার সামনে গিয়ে আটকে যাচ্ছিল মেসি, সুয়ারেজদের প্রতিটি আক্রমণ। পুরো ম্যাচ জুড়ে ছিল উত্তেজনা। আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে জমে উঠেছিল পুরো ম্যাচ। সকলেই যখন ধরে নিয়েছিল ম্যাচটি ড্রয়ের মাধ্যমে শেষ হবে তখনই জ্বলে উঠলেন মেসি-সুয়ারেজ। আর এতেই শেষ অবলাকের সব চেষ্টা।

শনিবার বার্সেলোনার ঘরের মাঠ ক্যাম্প নূয়ে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদকে স্বাগত জানায় বার্সেলোনা। তবে মাঠের মধ্যে কোনো অতিথিপরায়ণতা দেখা যায়নি বার্সার খেলায়। পুরো ম্যাচজুড়েই অ্যাথলেটিকো রক্ষণকে ব্যতিব্যস্ত রাখেন মেসি, সুয়ারেজ, কুতিনহোরা।

আক্রমণেও আধিপত্য ছিল স্বাগতিকদেরই। ১৫ মিনিটে এগিয়েও যেতে পারত তারা। কিন্তু দুর্ভাগ্য, জরদি আলবার শট গোলরক্ষককে পরাস্ত করলেও পোস্টে লেগে ফেরে।

আগের তিন ম্যাচেই অসাধারণ ফ্রি কিকে গোল করেছিলেন মেসি। ২৩ মিনিটে বক্সের একটু বাইরে ফ্রি কিক পেলে বার্সা সমর্থকরা আবারো তাই আশায় বুক বেঁধেছিলেন। তবে এবার তেমন কিছু করতে পারেননি আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড।

২৮ মিনিটে বড় ধাক্কা খায় অ্যাথলেটিকো। রেফারির একটি সিদ্ধান্তে ক্ষেপে যান কস্তা। তেড়ে গিয়ে রেফারিকে গালি দিয়ে বসেন ব্রাজিলীয় বংশোদ্ভূত স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড। রেফারি জেসুস গিল মানজানো ব্যাপারটা মোটেই ভালোভাবে নেননি। রেফারি তাই সরাসরি লাল কার্ড দেখিয়ে মাঠ ছাড়া করেন কস্তাকে।

একজন কম নিয়ে খেলেও ভালোই লড়ে যাচ্ছিল অ্যাথলেটিকো। মেসি-সুয়ারেজদের সামনে একরকম চীনের প্রাচীর হয়ে দাঁড়িয়ে গিয়েছিলেন অবলাক। দ্বিতীয়ার্ধে মেসি-সুয়ারেজকে দুইবার করে গোলবঞ্চিত করেন অ্যাটলেটিকোর স্লোভেনিয়ান গোলরক্ষক।

অবলাক যখন ম্যাচের নায়ক হয়েই যাচ্ছিলেন প্রায়, তখনই দৃশ্যপটে হাজির সুয়ারেজ। ৮৫ মিনিটে দারুণ এক গোল করে বার্সাকে এগিয়ে দেন তিনি। আলবার পাস ধরে ২৫ গজ দূর থেকে বাঁকানো নিচু শটে অবলাককে পরাস্ত করেন উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার। চলতি লা লিগায় এটি তার ২০তম গোল।

৬০ সেকেন্ড পরই ব্যবধান দ্বিগুণ করার পাশাপাশি বার্সার জয় নিশ্চিত করে ফেলেন মেসি। মাঝমাঠ থেকে একাই বল টেনে নিয়ে যান আর্জেন্টাইন তারকা। বক্সের ভেতর তাকে বাধা দিতে গিয়ে পড়ে যান অ্যাটলেটিকোর ডিফেন্ডার হোসে জিমিনেজ। আরো দুই খেলোয়াড়কে ফাঁকি দিয়ে নিচু শটে বল জালে পাঠান পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। এবারের লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা মেসির এটি ৩৩তম গোল।

পুরো ম্যাচে একটি কিংবা দুটি নয়, নয়-নয়টি সেভ করে বার্সেলোনাকে গোলবঞ্চিত রেখেছিলেন ইয়ান অবলাক।

৩১ ম্যাচে ২২ জয় ও সাত ড্রয়ে শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার পয়েন্ট বেড়ে হলো ৭৩। দুইয়ে থাকা অ্যাটলেটিকোর পয়েন্ট ৬২। দিনের প্রথম ম্যাচে পিছিয়ে পড়েও করিম বেনজেমার জোড়া গোলে এইবারকে ২-১ ব্যবধানে হারানো রিয়াল মাদ্রিদ ৬০ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে।