Templates by BIGtheme NET
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

দ্বিতীয় ক্ষণস্থায়ী প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন ট্রাম্প!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে ২০ জানুয়ারি শপথ নেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। অথচ এরই মধ্যে তাকে অভিশংসিত করার দাবি উঠেছে। আর দাবিটি তুলেছেন তার দল রিপাবলিকান পার্টিরই সাবেক এক বিচারপতি।

অন্যদিকে প্রেসিডেনশিয়াল এক ইতিহাসবিদ বলছেন, ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সির মেয়াদ হবে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে দ্বিতীয় ক্ষণস্থায়ী। গতকাল শুক্রবার এ খবর দেয় ব্রিটিশ দৈনিক দি ইন্ডিপেন্ডেন্ট।

নীতি ভেঙে রাশিয়া সংযোগের কেলেঙ্কারিতে পদত্যাগ করেছেন তার মনোনীত জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিন। ওই দায়িত্ব নিতে নৌবাহিনীর সাবেক অ্যাডমিরাল রবার্ট হারওয়ার্ডসকে প্রস্তাব দিলে তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেছেন। শ্রমমন্ত্রীর পদে মনোনয়ন থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন অ্যান্ড্রু পুজডারও। এ ছাড়া পদত্যাগ করেছেন এএপিআই বিষয়ক ট্রাম্পের উপদেষ্টা কমিশনের ১০ সদস্য।

ওহাইও কোর্ট অব আপিলসের সাবেক বিচারপতি মার্ক পি পেইন্টার সিনসিনাটি ডটকমে পাঠানো এক লেখায় ট্রাম্পকে অভিশংসিত করার দাবি জানিয়েছেন। এ কাজে কংগ্রেসম্যান রিপ্রেজেন্টেটিভ স্টিভ চাবটকে সহায়তা করারও প্রস্তাব দিয়েছেন পেইন্টার।

পেইন্টার লিখেছেন, ট্রাম্প এরই মধ্যে যেসব অবৈধ কর্মকাণ্ড করেছেন, কোনো প্রেসিডেন্ট তো দূরের কথা অন্য অফিসধারীরাও তা করে বাঁচতে পারেননি। সঙ্গে সঙ্গেই তাদের অব্যাহতি দিতে হয়েছে।

তিনি আরও লিখেছেন, ‘কে জানে, সামনে কী ঘটবে। প্রতিটি নতুন দিনই যেন একটি নতুন দুঃস্বপ্ন। আমেরিকার জন্য পীড়াদায়ক একটি আদেশ হজম করতে না করতেই আরেকটি আদেশে স্বাক্ষর হয়ে যাচ্ছে, আদেশ জারি হচ্ছে কিংবা টুইট করা হচ্ছে।’

১৯৬৮ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত যতজন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন তাদের সবাইকে ভোট দিয়েছেন বলে জানান পেইন্টার। ট্রাম্পের অভিশংসনের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ‘এটি কঠিন, কিন্তু আমাদের এ বিপজ্জনক প্রেসিডেন্সির অবসান ঘটাতে হবে।’

এদিকে ইতিহাসবিদ রোনাল্ড ফিনম্যান ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন যে, ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি খুব ক্ষণস্থায়ী হবে। দেশটির ইতিহাসে যা হতে পারে দ্বিতীয় কম সময়ের প্রেসিডেন্সি। অধ্যাপক ফিনম্যান বলেছেন, সর্বনিম্ন ৩১ থেকে সর্বোচ্চ ১৯৯ দিনের মধ্যেই মসনদ হারাবেন ট্রাম্প।

৯ম মার্কিন প্রেসিডেন্ট উইলিয়াম হেনরি হ্যারিসন মাত্র ৩১ দিন ক্ষমতায় ছিলেন। ১৯৪১ সালে ক্ষমতায় থাকাকালে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা যান। এর পর সবচেয়ে কম সময় প্রেসিডেন্ট ছিলেন জেমস গারফিল্ড। ক্ষমতা গ্রহণের ১৯৯ দিনের মাথায় তিনি মারা যান। ২০তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার ৭৯ দিনের মাথায় গুপ্তঘাতকের গুলিতে মারাত্মক আহত হয়েছিলেন গারফিল্ড।

অধ্যাপক ফিনম্যান বলছেন, ট্রাম্প ১৯৯ দিনের বেশি মসনদে থাকতে পারবেন না। তবে কোনোভাবে সেই সময় পার করতে পারলেও দেড় বছরের আগেই ক্ষমতাচ্যুত হবেন ট্রাম্প।