Templates by BIGtheme NET
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

মন ভাল নেই ভালবাসা দিবসের প্রবক্তার

বিশেষ প্রতিবেদন: পশ্চিমা বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে বিশ্ব ভালবাসা দিবস। কিন্তু বাংলাদেশের সেই ভালবাসার উদ্ভাবক শফিক রেহমান ভাল নেই। আর তার ভালবাসা দিবসটি কাটছে নিঃসঙ্গতার সঙ্গে। কারণ এই দিনে তার সঙ্গে নেই তার স্ত্রী তালেহা রহমান। চিকিৎসার জন্য আছেন অদূর লন্ডনে। কয়েক দিন আগেই পরগমনে গেলেন নিজের সহোদর ভাই। সবকিছু মিলিয়ে ভিষণ কষ্টে আছেন সিনিয়র এ সাংবাদিক।

ভালবাসা দিবস উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার দুপুরে ইস্কাটন গার্ডেনের বাসায় এ প্রতিবেদকের সঙ্গে শফিক রেহমানের একান্ত আলাপচারিতায় এসব বেদনার কথা উঠে আসে।

১৯৯০ সালে তিনি বাংলাদেশে ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালবাসা দিবসের প্রচলন করেন। তারপর থেকেই ধারাবাহিকতার সঙ্গে পালিত হয়ে আসছে এ দিবসটি। পশ্চিমা বিশ্বে ভালবাসা মানে প্রেমিকপ্রেমিকা আর স্বামী স্ত্রী। কিন্তু ভিন্ন আঙ্গিকে বাংলাদেশে তিনি (শফিক রেহমান) এনেছে যে, ভালবাসা মানেই শুধুমাত্র প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে ভাবের আদান-প্রদান নয়। তিনি বলেছেন, এটা স্বামী-স্ত্রী, পিতা-মাতা-সন্তান, ছাত্র-শিক্ষক, তথা মানুষের প্রতি মানুষের ভালবাসা। ভালবাসা একটা প্রাণীর প্রতিও থাকে।

শফিক রেহমান বলেন, এ ভালবাসা দিবসে ছেলে-মেয়ে যারা পারে এই দিনটেতে মাকে এক কাপ চা বানিয়ে খাওয়াবে এবং যাদের স্ত্রী আছে তারা স্ত্রীকে একটা আদর দেবে এটাই ভালবাসা। ভালবাসা মানে প্রেমিক-প্রেমিকা নয়।

নিজ স্ত্রী তালেহা রহমানের সম্পর্কে সিনিয়র সাংবাদিক লাল গোলাপ শফিক রেহমান বলেন, বিয়ের ৬০ বছরচলছে। বিয়ের আরো ৫ বছর আগে থেকেই প্রিয়তমা স্ত্রীর সঙ্গে পরিচয় ছিল। গত ১৮ জানুয়ারি বিবাহ বার্ষিকী ছিল আমাদের।অথচ বিবাহ বার্ষিকীর সেই দিনটাতেই জানতে পারি ওর ক্যান্সার ধরা পড়েছে। ভাইটাও কিছু দিন আগে মারা গেল। খুব দুঃখের সঙ্গে বলতে হয়,আজ তাকে (স্ত্রী) খুব বেশি মনে পড়ছে। আমি পড়ে আছি দেশে। আর যে আমার ভালবাসার পাত্রী সে পড়ে আছে সুদূর লন্ডনে চিকিৎসার জন্য। শুনেছি আজ লন্ডনের ম্যাকমিলন ক্যান্সার রিসার্স সেন্টারে তার চিকিৎসা চলছে। এখনো কথা বলতে পারিনি তার সঙ্গে। অথচ প্রতি বছরই ভালবাসা দিবসে স্ত্রীকে কাছে পেয়েছি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ ও হত্যার ষড়যন্ত্রের মামলায় আপিল বিভাগ থেকে গত ৩১ আগস্ট জামিন পাওয়ার পাঁচদিন পর কারামুক্ত হন শফিক রেহমান।

জামিনের শর্ত ছিল পাসপোর্ট জমা রাখা। সেজন্যে তিনি তার স্ত্রীর সঙ্গে বিদেশে যেতে পারেননি। তবে এরই মধ্যে তিনি আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে স্ত্রীর কাছে যাওয়ার অপেক্ষা করছেন। এজন্য সরকার তাকে যথাযথ সহযোগিতা করবে বলেও আশ্বাসে রয়েছেন তিনি।

৮২ বছরের এ সিনিয়র সাংবাদিক বলেন, স্ত্রী লন্ডনে, আমি বাংলাদেশে, ওকে ছাড়া বিশ্ব ভালবাসা দিবসের সময় পার হয়ে যাবে, ভাবতেই পারছি না। আইনগত কাজ শেষে পাসপোর্ট পাবার পর ওর কাছে যাবো, মনটা একেবারেই টিকছে না আমার। যায়যায়দিন পত্রিকার সাবেক এই সম্পাদকের ছেলে সুমিত রহমান লন্ডন প্রবাসী, সেখানে আছেন তালেয়া।

বিশ্ব ভালবাসা দিবস প্রচলন করার সময়কার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ধর্মীয় মৌলবাদী, সাংস্কৃতিক মৌলবাদীরা আমাকে নিয়ে নেতিবাচক অনেক কিছুই করেছে। কিন্তু আমি মানুষকে বোঝাতে পেরেছি ভালবাসা দিবস কী? কেন এটা করা প্রয়োজন। ভালবাসা মানেই শুধুমাত্র প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে ভাবের আদান-প্রদান নয়। এটা স্বামী-স্ত্রী, পিতা-মাতা-সন্তান, ছাত্র-শিক্ষক, তথা মানুষের প্রতি মানুষের ভালবাসা। ভালবাসা তো একটা প্রাণীর প্রতিও থাকে।

তিনি বলেন, প্রতিদিন পত্রিকায় খুন, ধর্ষণ, নির্যাতন-নিপীড়নের কত ভয়াবহ-বীভৎস খবর পড়তে হয়, দেখতে হয়, শুনতে হয়। মানুষের প্রতি তো মানুষের ভালবাসা জাগিয়ে তুলতে হবে। থাক না, একটা দিন ভালবাসার জন্যে। অন্তত ভালবাসা দিবসের দিন মানুষ ভালবাসার কথা স্মরণ করবে এর উছিলায় এই একটা দিন অন্তত ভয়াব ও বীভৎস ঘটনা খুব কম হবে।

নিজের শারিরীক সমস্যা নিয়ে লাল গোলাপ বলেন, জেলে থাকাকালীন সময় শরীরের ১০ কেজি ওজন কমেছে। এখন ৪ থেকে ৫ কেজির মত এসেছে। তবুও শরীরটা ভাল না। তার মধ্যে মন ভাল নেই বেশি। কারণ আমার প্রিয়তমা স্ত্রী কাছে নেই, অসুস্থ। দেখতে মন আনচান করছে।

তিনি বলেন, আমাদের দু’জনেরই বয়স ৮২ বছর। যার কারণে আমাদের অয়ুও কমে এসেছে। এই সময় আমাদের দু’জনকে এক সঙ্গে থাকার প্রয়োজন। তাই আমি চাইব, বিচার বিভাগ এবং সরকার আমাকে অসুস্থ স্ত্রীকে দেখতে যাওয়ার জন্য যাওয়ার অনুমতি দেব।