Templates by BIGtheme NET
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

সিয়েরা নেভাদার গোপন রহস্য এখনো অজানা

ফিচার ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার বিখ্যাত একটি এলাকা হলো সিয়েরা নেভাদা। এটি মানুষের অবকাশ যাপনের জন্য সুপরিচিত হলেও এখানে রয়েছে গোপন মরুভূমির পাহাড়। রয়েছে চুনা পাথর জন্মানোর মতো হ্রদ। অসংখ্য গিরিপথ ও অপ্রকাশিত গোপন রহস্যে ঘেরা এ পাহাড়ি অঞ্চল। যদিও অনেকের কাছে এলাকাটি স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলার অন্যতম মনোরম স্থান। বিশেষ করে, পর্যটকদের কাছে গোপন এই এলাকাটির পরিবেশ উত্তেজনাকর ও রহস্যময়। কেননা এলাকাটির পূর্বদিকের কিছু অংশ উন্মুক্ত থাকলেও বাকিটার রহস্য এখনো গোপনই রয়ে গেছে।

এটি ক্যালিফোর্নিয়ার উচ্চতম মরুভূমির পাহাড়। এই পাহাড়ের পুরোটা উন্মুক্ত না থাকায় এটির রহস্য নিয়ে কৌতূহলের শেষ নেই। তবে ধারণা করা হচ্ছে, এই পাহাড়ে পৌঁছতে সক্ষম হলে এখানকার লবণাক্ত লেক সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যাবে।

এখানকার উচ্চতম মরুভূমির পাহাড়সহ বিভিন্ন গোপন রহস্যও উন্মোচন করা যাবে। এ ছাড়া মানুষকে প্রকৃতি এবং ঐতিহাসিক পরিবেশ সম্পর্কে ভূতাত্বিক ধারণা পেতে সাহায্য করবে। আরো জানা যাবে এখানকার ভৌতিক শহর সম্পর্কে।

বিশ্ববিখ্যাত এই সিয়েরা নেভাদা পাহাড় একটি লেক দারা বেষ্টিত। এখানে চারটি বিখ্যাত জাতীয় উদ্যান রয়েছে। যেগুলো হলো, ইউসিমিটি, কিংগস, সিকুইয়া এবং ভলকানিক।

এটি সিয়েরা নেভাদারই একটি অংশ। এটি প্রচণ্ড উত্তপ্ত একটি পাহাড়। জাতীয় পার্কগুলো এর সৌন্দর্যকে আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।

ক্যালিফোর্নিয়ার হট গ্রিক মনো এলাকা নিয়ে ২০ মাইলজুড়ে এই পাহাড়ের অবস্থান। ধারণা করা হচ্ছে, ৭০ হাজার বছর আগে এই পাহাড়ে জীবন্ত আগ্নেয়গিরির উপস্থিতি ছিল। যেটি এখন মৃত।

এখানে একটি লেক রয়েছে। লেকটির পানি সব সময় স্থির থাকে। যেটির রহস্য এখনো গোপনই রয়ে গেছে।

সিয়েরা নেভাদার পশ্চিমে এই পাহাড়টির নাম ভলকানিক পাহাড়। এটি ২৫ মাইল দীর্ঘ। এখানে বেশ কয়েকটি গোপন গীরি পথ রয়েছে। এখানকার অনেকগুলো গোপন রহস্য এখনো অজানা।

এটি মনো লিনিও ক্রিটস-এর চার মাইল উত্তরে অবস্থিত। হাজার হাজার বছর পূর্বে লেকটির জন্ম বলে ধারণা ভূতাত্বিকদের। বৃষ্টি ও বরফ গলা পানি থেকেই এই লেকটির সৃষ্টি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

হ্রদের পানির সঙ্গে মিশে ক্যালিফোর্নিয়ার বিখ্যাত এ চুনা পাথরের পাহাড়ের জন্ম। হ্রদের পানির সঙ্গে মিশে গড়ে ওঠা এই চুনা পাথরের পাহাড়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ১৯৯৮ সালে চুনা পাথর জন্ম নেয়া ছোট ছোট পাথর তৈরির এ এলাকাটিকে একটি বিরল স্থান বলে ঘোষণা দেয়া হয়। এই হ্রদের পানি অত্যন্ত লবণাক্ত। পানিতেই গড়ে ওঠে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র চুনা পাথরের পাহাড়।

বডি হিল নামের এই পাহাড়টি রাজ্যের একটি আকর্ষণীয় এলাকা। এখানেই বিপুল পরিমাণ সোনা-রুপা সঞ্চিত রয়েছে।

এটি একটি ছোট শহর। যেখানে ৮ হাজার ৫ শ লোকের বসবাস ছিল। বিগত কয়েক দশক থেকে এই এলাকটি সংরক্ষিত রয়েছে।

২০১১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের সরকার অর্থনৈতিকভাবে সংকটে পড়ে। ওই সময় প্রায় ৭০টির মতো পার্ক বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে সিয়েরা নেভাদার একটি বড় অংশজুড়ে থাকা এই পাহাড়টিও রয়েছে।

এই পাহাড়টি ১৯৬১ সালে জাতীয় দর্শনীয় স্থানের মর্যাদা লাভ করে। এ জায়গাটি উন্মুক্ত করা হলে এর প্রকৃতিগত রহস্যগুলো গবেষণার মাধ্যমে বের করা সম্ভব হবে।