Templates by BIGtheme NET
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

প্রখ্যাত মুহাদ্দিস আল্লামা সূফী আবদুর রশীদ আর নেই

নিউজ ডেস্ক: উপমহাদেশের ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছারছীনা দারুচ্ছুন্নাত জামেয়া ইসলামিয়ার সাবেক মুহাদ্দিস আল্লামা সূফী আবদুর রশীদ (৮০) গতকাল (৩০ জানুয়ারি) সোমবার সন্ধ্যা ৬ টা ১৫ মিনিটের সময় বার্ধক্যজনিত কারণে তাঁর নিজ বাড়ীতে ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

তাঁর মৃত্যুতে বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা তাঁর ছাত্র, ভক্তবৃন্দ এবং ইসলামি অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে আসে।

তিনি ১৯৪০ সালে পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার ভাইজোড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ছাত্র জীবন থেকেই ইসলামের প্রতি অত্যাধিক অনুরক্ত ও তাকওয়ার কারণেই তাঁকে ‘সূফী সাহেব’ হিসেবে সমধিক পরিচিত ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে ও চার মেয়ে রেখে গেছেন।

তিনি শদাব্দীর ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছারছীনা দারুচ্ছুন্নাত জামেয়া ইসলামিয়ায় কামিল পর্যন্ত পড়াশোনা করেন। পড়াশোনা শেষে ১৯৬৫ সালে তিনি এ মাদ্রাসাই মুহাদ্দিস হিসেবে যোগদান করেন।

সুদীর্ঘ ৫৬ বছর ধরে তিনি ছারছীনা আলীয়ায় ইলমে হাদিসের খেদমতে নিজেকে নিয়োজিত রাখেন। ছারছীনা থাকাকালীন সময়ে তিনি ছারছীনা দরবার মসজিদের ইমাম ও খতিবের দায়িত্বও পালন করেন।বিশেষ করে মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত তিনি ছারছীনা দরবারের তিনব্যাপী মাহফিলের প্রতি ওয়াক্তের নামাজের ইমামতিও তিনি করতেন।

মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত এ ক্ষণজন্মা মুহাদ্দিস বাংলাদেশ জমইয়তে হিযবুল্লাহর নায়েবে আমিরের দায়িত্ব পালন করেন। আজ মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) মঙ্গলবার বাদ জোহর ছারছীনার দরবারের তাঁর প্রথম জানাযা অনুষ্ঠিত হবে।

আগামীকাল বেলা ১১ টার সময় তাঁর নিজ বাড়ী মঠবাড়িয়ার ভাইজোড়া গ্রামের দ্বিতীয় জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হবে।

তাঁর মৃত্যুতে ইসলামি অঙ্গনের অসংখ্য ইসলামি ব্যক্তিত্ব শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেন। সবাই তাদের শোকবার্তায় জানান, ‘আল্লামা আবদুর রশীদ সুফী সাহেব হুজুর ছিলেন ইসলামি অঙ্গনের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। তাঁর মৃত্যুতে জ্ঞান পিপাসুদের অপূরণীয় ক্ষতি হলো। যা কোনো পূরণ হওয়ার নয়।

বিশেষ করে, বর্তমান ছারছীনার গদ্দীনশীন পীর সাহেবও তাঁর ছাত্র ছিলেন। তিনিসহ তাঁর সব ছাত্র ও ভক্তবৃন্দ তাঁর রূহের মাগফিরাত কামনা করেন। আল্লাহ তাআলা তাঁকে জান্নাতের উচ্চ মাকাম দান করুন। তাঁর পরিবারবর্গকে ধৈর্যধারণ করার তাওফিক দান করুন।